সীমান্তে বাংলাদেশী নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার!

0
59
সীমান্তে বাংলাদেশী নিখোঁজ হওয়ার ১১ দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার!

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ আজ মঙ্গলবার ২৯/০৯/২০ তাং বিকালে ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধীনে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার রত্নাই বিওপির সীমান্ত পিলার ৩৮১/৩ এস এর নিকট শূন্য লাইন বরাবর বাংলাদেশের ৩০ গজ অভ্যন্তরে নাগর নদীতে ভাসমান একটি লাশ,স্থানীয় লোকজন দেখতে পেয়ে রত্নাই বিওপিতে জানালে বিওপি হতে ০১টি টহল দল বর্ণিত স্থান হতে মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

মৃতদেহ উদ্ধার হলে স্থানীয় মোঃ আবু নাইম (২২) পিতাঃ জালাল উদ্দিন, গ্রামঃ পশ্চিম কান্দিপুর, পোষ্টঃ হরিনমারী, থানাঃ বালিয়াডাঙ্গী, জেলাঃ ঠাকুরগাঁও উক্ত মৃতদেহ টি তার নিখোঁজ হওয়া খালাতো ভাই কর্তৃক আঃ হক আদু বলে চিহ্নত করেন।

পরে সন্ধা ৬টা ৩০ মিনিটে বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশ কর্তৃক মৃতদেহটি নদীর পাড় থেকে ময়নাতদেন্তের জন্য থানায় নিয়ে যায় । ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে বলে জানা গেছে ।

উল্লেখ্য গত ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখ আনুমানিক ০৩.০০ ঘটিকায় ঠাকুরগাঁও ব্যাটালিয়নের (৫০ বিজিবি) কোটপাড়া বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকার সীমান্ত পিলার ৩৮৩/২ এস এর আয়রন ব্রীজ নামক স্থান দিয়ে আনুমানিক ১০০ গজ ভারতের অভ্যন্তরে ৭-৮ জন বাংলাদেশী গরু চোরাকারবারী অবৈধভাবে প্রবেশ করে গরু আনতে গেলে ভারতের ১৭১/ সোনামতি বিওপির টহল দল তাদের কে দেখে ধাওয়া দিলে চোরাকারবারীরা বাংলাদেশে ফেরত আসার জন্য নাগর নদীতে ঝাপ দেয়। উক্ত নদীতে ঝাপ দেওয়ার পর থেকে বাংলাদেশী চোরাকারবারী আঃ হক আদু মিয়া (২৮) পিতাঃ মোঃ এজাবুল, গ্রামঃ যুগিহার, পোষ্টঃ হরিনমারী, থানাঃ বালিয়াডাঙ্গী, জেলাঃ ঠাকুরগাঁও নিখোঁজ ছিলেন। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তাকে বা তার লাশ কদিন পাওয়া যায়নি বলে জানা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here