ভুয়া এ্যাডভোকট আলমগীরকে নিয়ে ফেসবুকে সমালোচনার ঝড়

0
68
ভুয়া এ্যাডভোকট আলমগীরকে নিয়ে ফেসবুকে সমালোচনার ঝড়

খবর৭১ঃ

রাজিব আহমেদ রাসেল, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার বড় ধুনাইল গ্রামের মো আলমগীর হোসেন দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন পোষ্টার ব্যানারের মাধ্যমে নিজেকে আইনজীবি পরিচয় দিয়ে আসছেন। কিন্তু খোজ নিয়ে জানা গেছে সে কোন আইনজীবি সমতির তালিকাভুক্ত শিক্ষানবিশ আইনজীবি না।

খোজ নিয়ে আরো জানা গেছে সে কোন সিনিয়র আইনজীবীর সাথে প্র্যাক্টিস করে না।মোট কথা আইনপেশার সাথে তার কোন সম্পৃক্ততা নাই। সে কোন আইনজীবি সমিতির শিক্ষানবিস সদস্য না হলেও দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় নিজেকে এ্যাডভোট পরিচয় দিয়ে প্রতারনা করে আসছেন।ডাঃ না হয়ে নামের পাশে ডাঃ ব্যবহার করা যেমন দন্ডনীয় অপরাধ এ্যাডভোকেট না হয়ে নিজেকে এ্যাডভোকেট পরিচয় দেওয়াটা দন্ডনীয় অপরাধ।সম্প্রতি নিজেকে এ্যাডভোকেট পরিচয় দিয়ে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়ে শাহজাদপুর পৌর শহর সহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পোষ্টারিং করেছে।শাহজাদপুর কোট উপজেলার উত্তর গেটেের দেওয়ালেও পোষ্টারিং করলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা সেই পোষ্টারিং ছড়িয়ে পরেছে।এই ভুয়া এ্যাডভোকেট আলমগীর কে নিয়ে চলছে সমালোচনার ঝড়। একজন মন্তব্য করেছেন ‘বোরকা পরা সাহেদের ছোট ভাই বোরকা কোথায়’ অন্যজন মন্তব্য করেছেন ‘ওরে চিটার ওরে বাটপার’ ‘প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করেছ অনেকেই’।

পোষ্টারে চতুরতা করে নামের শেষে (শিক্ষানু) লিখে রাখছে যা গ্রহনযোগ্য না।কোন আইনজীবী সমিতির তালিকাভুক্ত শিক্ষানবিস হয়ে আদালতে কোন সিনিয়র আইনজীবীর সাথে নিয়মিত প্র্যাক্টিস করলে তবে মাত্র কেউ তার নামের পাশে শিক্ষানুবিস এ্যাডভোকেট, বা এ্যাডভোকেট( শিক্ষানুবিস) লিখতে পারবে।কিন্তু আলমগীর সাহেব নামের আগে পুরোদস্তুর এ্যাডঃ ব্যবহার করে ধোঁকাবাজি করে যাচ্ছে। এসব ভুয়া এ্যাডভোকেট দ্বারা সমাজ প্রতারিত হবে সময় থাকতে এ ধরনের টাউট ভুয়া এ্যাডভোকেটকে প্রতিহত করার জন্য কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছে সাধারন মানুষ। এ ধরনের ভুয়া এ্যাডভোকেটদের দৌরাত্ম বাড়লে বিচারপ্রার্থীরা প্রতারনার হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এ ব্যাপারে আলমগীর হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ সে বলে এলাকায় লোক দিয়ে পোষ্টার লাগানো হয়েছে। কোন কোর্টে কোন সিনিয়র আইনজীবীর সাথে প্র্যাক্টিস করেন তার কোন সদুত্তর দিতে পারে নাই। সিরাজগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সিনিয়র আইনজীবি আফতাব উদ্দীন বলেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সনদ না থাকলে কেউ নিজেকে এ্যাডভোকেট .বা নামের সাথে এ্যাডভোকেট ব্যবহার করার কোন বিধান নাই।

এর বাইরে কেউ নিজেকে এ্যাডভোকেট পরিচয় দিলে তা শাস্তিযোগ্য কেউ এভাবে নামের পাশের এ্যাডভোকেট লেখা একধরনের প্রতারণা। আরেক আইনজীবী আনোয়ার হোসেন জানান বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সনদ না থাকলে কেউ তার নামের পাশে এ্যাডভোকেট ব্যবহার করতে পারবে না।বার কাউন্সিলের সনদ ছারা কেউ নিজেকে এ্যাডভোকেট পরিচয় দিলে তা প্রতারনার সামিল শাস্তিযোগ্য অপরাধ। সিরাজগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ আনোয়ার পারভেজ লিমন জানান, আলমগীর হোসেন নামে কোন আইনজীবি সিরাজগঞ্জ কোর্টে নাই।এধরনের ভুয়া এ্যাডভোকেট টাউটদের বিরুদ্ধে খুব শীঘ্রই আমরা ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here