করোনা সংক্রমণ আতঙ্কের মধ্যে আজ ভোটগ্রহণ

0
55
করোনা সংক্রমণ আতঙ্কের মধ্যে আজ ভোটগ্রহণ

খবর৭১ঃ

করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যে যশোর-৬ ও বগুড়া-১ আসনে ভোটগ্রহণ আজ। সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে। এ উপলক্ষে নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। যান চলাচলের ওপরও বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

দেশে করোনা সংক্রমণ ও বন্যা পরিস্থিতির অবনতির কারণে ভোটার উপস্থিতি নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। তবে নির্বাচন কমিশন দাবি করেছে, সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে এ দুটি আসনে এখনই ভোটগ্রহণ করতে হচ্ছে।

এ আসন দুটিতে ২৯ মার্চ উপনির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে শেষ সময় তা স্থগিত করা হয়। এখন সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থেকে এ নির্বাচন করছে ইসি। ১৫ জুলাই বগুড়া-১ আসনের এবং ১৮ জুলাই যশোর-৬ আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সংবিধান নির্ধারিত ১৮০ দিন শেষ হতে যাচ্ছে। সংবিধানের ১২৩ অনুচ্ছেদের ৪ দফায় বলা হয়েছে, ‘সংসদ ভাঙ্গিয়া যাওয়া ব্যতীত অন্য কোনো কারণে সংসদেও কোনো সদস্যপদ শূন্য হইলে পদটি শূন্য হইবার নব্বই দিনের মধ্যে উক্ত শূন্যপদ পূর্ণ করিবার জন্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইবে।

তবে শর্ত থাকে যে, যদি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের মতে, কোনো দৈব-দুর্বিপাকের কারণে এই দফার নির্ধারিত মেয়াদের মধ্যে উক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব না হয়, তাহা হইলে উক্ত মেয়াদেও শেষ দিনের পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে উক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইবে।’

ইসি জানিয়েছে, যশোর-৬ আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ আসনে ভোটার দুই লাখ ৪ হাজার ৩৯৭ জন। ভোট কেন্দ্র ৭৯টি ও ভোট কক্ষ ৩৭৪টি। অপরদিকে বগুড়া-১ আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, খিলাফত আন্দোলন, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পার্টি ও একজন স্বতন্ত্রসহ ৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ আসনের ভোটার তিন লাখ ৩০ হাজার ৯১৮ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ১২৩ এবং ভোট কক্ষ ৭১০টি।

ভোটগ্রহণ উপলক্ষে সোমবার মধ্যরাত ১২টা থেকে ১৪ জুলাই দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় বেবিট্যাক্সি/অটোরিকশা, ইজিবাইক ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, কার, বাস-ট্রাক ও টেম্পো চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এছাড়া ১২ জুলাই দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে ১৫ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত সব ধরনের মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here