মুরাদনগরে পূর্ব শত্রুতার জেরে নির্মাণাধীন দালান ভাঙচুর থানায় মামলা

0
174
মুরাদনগরে পূর্ব শত্রুতার জেরে নির্মাণাধীন দালান ভাঙচুর থানায় মামলা
ছবিঃ মোঃ রাসেল মিয়া, মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি।

খবর৭১ঃ

মোঃ রাসেল মিয়া, মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার মুরাদনগরে জমি সংক্রান্ত পূর্বশত্রুতার জের ধরে নির্মাণাধীন দালান ভাঙচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার বিকেলে উপজেলার পাহাড়পুর ইউনিয়নের সরমাকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় রবিবার রাতেই মুরাদনগর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার সরমাকান্দা গ্রামের মৃত মরজুদ্দিন সরকারের ছেলে আঃ সামাদের সাথে একই গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনে ছেলে তারু মিয়ার জমির ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ মামলা চলে আসছিলো। গত চার বছর আগে সামাদ মিয়া আদলতের রায় পাওয়ার ফলে মুরাদনগর থানা পুলিশ উপস্থিত থেকে জমির দখল বুঝিয়ে দেয়। তার পর থেকে ওই জমিতে সামাদ ভোগ দখল করে আসছিলো। গত ৪ মাস আগে সামাদ মিয়া ওই জমিতে দালান নির্মাণের কাজ শুরু করলে আবারও তারু মিয়া বাধা প্রদান করে ১৪৫ ধারা মোতাবেক নোটিশ জারি করান।

কিছুদিন পরেই আবারো আদালত থেকে সামাদ মিয়াকে কাজ করার অনুমতি দেয়া হয়। আইনি প্রক্রিয়ায় কোন কিছু না করতে পেরে গত রবিবার (২৯ মার্চ) বিকেলে তারু মিয়া তার দুই ভাই ভাতিজাসহ দুর থেকে ভাড়া করে নিয়া আসা অজ্ঞাত নামা প্রায় ৫০ জন ব্যাক্তি দেশিয় অস্ত্র নিয়ে সামাদ মিয়ার নির্মাণাধীন দালান ভাঙচুর করে সেখানে থাকা প্রায় ৪ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এসময় সামাদ মিয়ার ভাই ও স্ত্রী বাধা দিতে আসলে তাদেরকেও বেধরক পিটিয়ে আহত করা হয়। বর্তমানে তারা মুরাদনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য এমরান হোসেন বলেন, বহুদিন যাবৎ সামাদ মিয়া ও তারু মিয়ার মধ্যে জমির ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে মামলা চলে আসছে। এ নিয়ে কয়েক দিন পরপর তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। শুনেছি গত রবিবারেও নাকি তারু মিয়া বহিরাগত কিছুলোক নিয়ে সামাদের নির্মাণাধীন দালান ভাঙচুর করেছে।

আমরা চাই এ ঘটনাটির সঠিক তদন্ত শেষে একটি সুষ্ঠু সমাধাণ যেন দেয়া হয়। অন্যথায় এখানে একটি বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভবনা রয়েছে। এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা মুরাদনগর থানার এসআই জালাল উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি আসলেই দুঃখজনক যেহেতু এটি আদালতের বিষয় মামলা তদন্ত শেষে বিজ্ঞ আদালতে চর্জশিট জমা দেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here