হজ ব্যবস্থাপনা সহজ করুন: সৌদিকে ধর্মপ্রতিমন্ত্রী

0
139
হজ ব্যবস্থাপনা সহজ করুন: সৌদিকে ধর্মপ্রতিমন্ত্রী

খবর৭১ঃ হাজীদের জন্য হজ পালন সহজ করার জন্য দক্ষিণ এশিয়া হাজী সেবা সংস্থার (মোয়াসসাসা) শীর্ষ কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ।

বুধবার রাতে সৌদি আরবে মোয়াসসাসা অফিসে বৈঠকে তিনি এ আহ্বান জানান। বৃহস্পতিবার প্রতিমন্ত্রীর এপিএস শেখ নাজমুল হক সৈকতের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বৈঠকে প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ২০২০ সালে বাংলাদেশের হজ ব্যবস্থাপনা আরও উন্নত করা হবে। এজন্য সৌদি সরকারের সহযোগিতা অপরিহার্য। এ সময় মোয়াসসাসার চেয়ারম্যান ড. রাফাত বিন ইসমাইল বদর বাংলাদেশকে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

মাশায়ের-মোকাদ্দেসায় হাজীদের যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও উন্নত করা, হজের সময় হাজীদের অভিযোগ অনলাইনে পাঠানোর ব্যবস্থা করার ওপর বৈঠকে জোর দেন ধর্মপ্রতিমন্ত্রী।

বাংলাদেশি হাজীরা হিমায়িত খাদ্য পছন্দ করেন না। এজন্য ২০২০ সালের হজে বাধ্যতামূলক খাবার সরবরাহ প্রথা বন্ধের কথাও বলেন তিনি।

ধর্ম সচিব মো. আনিছুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব এবিএম আমিনুল্লাহ নুরী, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মিজানুর রহমান, জেদ্দায় বাংলাদেশের হজ কাউন্সিলর মুহম্মদ মাকসুদুর রহমান এবং ঢাকার আশকোনা হজ অফিসের পরিচালক সাইফুল ইসলাম বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে আগামী বছর হজ পালনে সরকারি ব্যবস্থাপনায় অধিকসংখ্যক হজযাত্রী উৎসাহিত করতে অপেক্ষাকৃত স্বল্পমূল্যের প্যাকেজ ঘোষণার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে বলে ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে।

চলতি বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের জন্য প্যাকেজ-১ ও প্যাকেজ-২ ঘোষণা করা হয়। প্যাকেজ-১ এর খরচ চার লাখ ১৮ হাজার ও প্যাকেজ-২ এ তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা ঘোষণা করা হয়।

আগামী বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীর সংখ্যা বৃদ্ধি করতে অপেক্ষাকৃত কম মূল্যের প্যাকেজ-৩ ঘোষণার চিন্তাভাবনা চলছে। কাবা শরিফ ও মসজিদে নববি থেকে কিছু দূরে কম টাকায় বাড়িভাড়া নিয়ে কম মূল্যের প্যাকেজ ঘোষণা করা যায় কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বুধবার মক্কায় সৌদি সরকারের ওমরাহ ও হজবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বাংলাদেশের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হজ চুক্তি-২০২০ হয়। চুক্তিতে আগামী বছর বাংলাদেশের জন্য ১০ হাজার হজযাত্রীর কোটা বৃদ্ধিসহ সব হজযাত্রীর সৌদি আরবের ইমিগ্রেশন ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সম্পন্ন, ঢাকা থেকে মদিনায় সরাসরি ফ্লাইট সংখ্যা বৃদ্ধিসহ বেশ কিছু ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কোটা বৃদ্ধি পাওয়ায় আগামী বছর এক লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজ পালনের সুযোগ পাবেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, বেসরকারি হজযাত্রীর সংখ্যা ঠিক রেখে অতিরিক্ত বরাদ্দপ্রাপ্ত ১০ হাজার হজযাত্রী সরকারি ব্যবস্থাপনায় নেয়া হতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here