হবিগঞ্জের ইজিবাইক চালক হত্যা মামলায় আরো ২ আসামীকে আটক করেছে পুলিশ

0
77
হবিগঞ্জের ইজিবাইক চালক হত্যা মামলায় আরো ২ আসামীকে আটক করেছে পুলিশ

মঈনুল হাসান রতন হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় চাঞ্চল্যকর ইজিবাইক চালক আব্দুল আউয়াল হত্যা মামলায় আরো ২ আসামীকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার ৩০ মার্চ তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর গোলাম মোস্তফা এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল মধ্যরাত থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে মো: রাস্ট্রু মিয়া ওরুফে তাজুল ইসলাম (১৭) ও মো: হাবিবুর রহমান (১৭) নামে দুই আসামীেক তাদের নিজ নিজ বাড়ি থেকে আটক করে।পরে আটককৃতরা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো: সুলতান উদ্দিন প্রধান এর আদালতে হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বিস্তারিত তথ্য উল্লেখ করে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে।

আটককৃত মো: রাস্ট্রু মিয়া (তাজুল ইসলাম) মাধবপুর উপজেলার কমলপুর গ্রামের আশ্রব আলীর ছেলে। বর্তমানে সে একই উপজেলার সন্তুষপুর এলাকায় বসবাস করে। মো: হাবিবুর রহমান মাধবপুর উপজেলার বরধলিয়া গ্রামের লাল খা এর ছেলে।তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর গোলাম মোস্তফা জানান, গত ১৭ মার্চ একটি সংঘবদ্ধ ইজিবাইক চোর চক্র আব্দুল আউয়াল (২০)কে চা বাগানে বেধে রেখে তার ইজিবাইকটি ছিনতাই করবে বলে পরিকল্পনা করে। পরদিন ১৮ মার্চ তারা চা বাগানে ঘুরতে যাবে বলে ভাড়া করে আব্দুল আউয়ালকে নিয়ে যায়। চা বাগানের ভেতরে গিয়ে আব্দুল আউয়ালকে বেধে ফেলার পরে তারা বুঝতে পারে সে তাদের চিনে ফেলেছে। ফলে তারা তাকে হত্যা করে লাশ চা বাগানে ফেলে ইজিবাইকটি নিয়ে যায়।১৯ মার্চ সন্ধ্যায় সুরমা চা বাগান কর্তৃপক্ষের নিকট থেকে খবর পেয়ে চা বাগানের কিবরিয়াবাদ এলাকা থেকে আব্দুল আউয়ালের মৃতদেহ উদ্ধার করে। আউয়ালকে হত্যার পর হত্যাকারীরা তাঁর মোবাইল ফোনটি নিয়ে যায়।

এই মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে পুলিশ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে হত্যাকারীদের সনাক্ত করে গত ২৯ মার্চ রাতে তিন হত্যাকারীকে আটক করেলে তারা হত্যাকাণ্ডে জরিত থাকার কথা স্বীকার করে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো নূরুল হুদা চৌধুরী এর আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে।তিনি আরো বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল মধ্যরাত থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে আমরা হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত আরো ২ জনকে আটক করি।পরে এই দুই জন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো:সুলতান উদ্দিন প্রধান এর আদালতে হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে।এ পর্যন্ত এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত ৫ জনকে আমরা আটক করতে সক্ষম হয়েছি। হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত আরো ২ জন এবং বেচাকেনার সাথে জড়িত ২ জনকে আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here